×
  • প্রকাশিত : ২০২২-১১-২৪
  • ২৯ বার পঠিত
শেষের শুরুটা যদি হয় বিপর্যয়ে, বিষণ্নতায়-মন তো বিশাদে চূর্ণ হবেই। লিওনেল মেসি এমন শুরু চাননি। হয়তো আর্জেন্টিনার শত্রুরাও ভাবেনি যে, কাতার বিশ্বকাপে সাদা-নীলদের শুরুটা হবে হার দিয়ে। পরশু রাতে অঘটনঘটনপটিয়সী সৌদি আরব সেই বাস্তবতা ফিরিয়ে এনে দোহায় দুুঃখের সাগরে ডুবিয়ে দিল ম্যারাডোনার দেশকে।

মঙ্গলবারের অপ্রত্যাশিত পরাজয়ে আর্জেন্টিনা শিবির ডুব দেয় বেদনার মহাসাগরে। প্রথম ধাক্কাটা অনেক জোরে লেগেছে। সৌদি আরবের কাছে হার মেনে নিতে পারছেন না মেসিরা। হোটেলে ফেরার পর রাতের খাবার একসঙ্গে খাননি ফুটবলাররা। এই হার তাদের কাছে অসহনীয়। মেসিরা কল্পনাও করেননি যে, এভাবে হারের ধাক্কা খেতে হবে। গোটা দল ভেঙে পড়েছে। আর্জেন্টিনা শিবিরে থমথমে পরিবেশ। ম্যাচ শেষে বাসে ওঠার আগে মেসি অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা মারা গেছি।’

আর্জেন্টিনার পত্রিকা ‘ক্ল্যারিন’ তাদের অনলাইন সংস্করণে জানিয়েছে, সৌদি আরবের কাছে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ২-১ গোলে হারার পর আর্জেন্টাইন ফুটবলাররা লুসাইল স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুমে প্রায় এক ঘণ্টা বসেছিলেন। এ সময় তারা খুব কম কথা বলেছেন। সাজঘরে মেসি মৌনতায় ডুব দিয়েছিলেন। কিন্তু হোটেলে ফেরার জন্য বাসে ওঠার সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাস্তবতা হলো, আমরা আর বেঁচে নেই। মারা গেছি। আমরা ভাবতেই পারিনি যে, এভাবে হারব। পুরো তিন পয়েন্টের আশায় খেলতে নেমেছিলাম। সব কিছুর একটা কারণ থাকে। এখন সামনে যা আসবে, তৈরি থাকতে হবে তার জন্য। জিততেই হবে আমাদের। নিজেদের ভাগ্য এখন আমাদের হাতে।’ মেসি আগেই জানিয়েছেন, এটাই তার শেষ বিশ্বকাপ। তার মুকুটে অনেক পালক। নেই শুধু বিশ্বকাপ ট্রফি। সেই অপূর্ণতা ঘোচানোর স্বপ্ন নিয়ে তিনি এসেছেন কাতারে। আর সেখানে শুরুতেই হোঁচট। চিত্রনাট্যকার মেসি ও আর্জেন্টিনার জন্য শেষ দৃশ্য কিভাবে লিখেছেন, তা দেখার জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া আর কিইবা করার আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat