×
  • প্রকাশিত : ২০২২-০৬-১২
  • ১৮ বার পঠিত
১. দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা 

কিছুতেই দেরি করে ঘুম থেকে উঠবেন না। সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠবেন। নিজেকে একটা কর্মক্ষম দিনের জন্য প্রস্তুত করবেন। নিজেকে সারাদিন সর্বোচ্চ কর্মক্ষম রাখতে একটা ‘স্ট্রং মর্নিং রুটিন’ মেনে চলুন। প্রতিদিন একই সময়ে ঘুমাতে যান। একই সময়ে উঠুন। নিজের শক্তি, সৃজনশীলতা আর কর্মক্ষমতার সর্বোচ্চ ব্যবহার করুন। নিজের লক্ষ্যে অটুট থাকুন। বড় লক্ষ্যকে ছোট ছোট ভাগে ভাগ করে নিজের দৈনিক লক্ষ্য পূরণ করুন। 

২. অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন 

সুন্দর ঘুম, স্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়া, নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম (হাঁটা বা ব্যায়াম), প্রতিদিন কিছুটা সময় রোদে থাকা, বই পড়া, ভালো সঙ্গ— স্বাস্থ্যকর জীবনের জন্য এগুলো খুবই জরুরি। আপনি যদি অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করেন, তাহলে আপনি নিজের ক্ষমতা আর সৃজনশীলতার সুষ্ঠু ব্যবহার করতে পারবেন না।

৩. ব্যর্থতার দায়িত্ব না নেওয়া 

ব্যর্থতা জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আপনি ব্যর্থ হবেন, সফল হবেন—এভাবেই আপনার দীর্ঘ যাত্রার শক্ত ভিত্তি তৈরি হবে। তাই ব্যর্থ হলেই কার ওপর দায়ভার চাপাবেন, সেটা যদি খুঁজতে শুরু করেন, তাহলে আর সফলতার মুখ দেখা হবে না। প্রথমত, ব্যর্থতার দায়িত্ব নিন। দ্বিতীয়ত, ব্যর্থতার কারণ খুঁজে বের করুন। সেটির একটা টেকসই সমাধান দিন। ওই কারণটা যেন ঘুরে ফিরে আবার না ঘটে, সেটি নিশ্চিত করুন। 

৪. অন্যের ওপর ভর করা

নিজের সব কিছুর দায়িত্ব নিজে নিন। কখনো ভাববেন না, আরেকজন এসে আপনাকে উদ্ধার করে দেবে। যতটা সম্ভব নিজের ওপর নির্ভর করুন। 

৫. সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা নেটফ্রিক্সে বেশি সময় কাটানো 

ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা নেটফ্লিক্সের মতো ওটিটি প্ল্যাটফর্ম—যা–ই হোক না কেন, এগুলো আপনি ব্যবহার করবেন। খেয়াল রাখবেন, ডিভাইস বা এসব প্ল্যাটফর্ম যেন আপনাকে ব্যবহার না করে। অতিরিক্ত খেলাও দেখবেন না। মাত্রা রেখে প্রয়োজনীয়, শিক্ষামূলক বিনোদন গ্রহণ করুন। 


 ৬. সঞ্চয় না করা 

যেদিন থেকে আয় করা শুরু করবেন, সেদিন থেকে সঞ্চয় করুন। সব সময় ব্যাকআপ প্ল্যান, ব্যাকআপ অর্থ রাখবেন। আগে লক্ষ্য অনুসারে সঞ্চয় করে তারপর যে অর্থ অবশিষ্ট থাকবে, সেটা খরচ করুন। কথাটি আমার নয়, বলেছেন মার্কিন ধনকুবের ওয়ারেন বাফেট।

৭. দরিদ্রঘেরা থাকা

আপনি জানেন কী, আপনি আপনার ‘সবচেয়ে কাছের পাঁচ বন্ধুর গড়’। এর মানে হলো, আপনার আশেপাশে যত মানুষ আছে, এর ভেতর যে মানুষগুলো আপনাকে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করে, সে রকম পাঁচ মানুষ নিয়েই আপনি। সেই পাঁচ মানুষের চরিত্র আপনার ভেতর পাওয়া যাবে। তাই আপনি যদি ধনী হতে চান, আর দরিদ্রদের সঙ্গে সময় কাটান, তাহলে আপনার ধনী হওয়ার ‘মোটিভেশন’ শেষ হয়ে যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat